Home / শীর্ষ সংবাদ / বাস থেকে ফেলে যাত্রীকে হত্যার প্রতিবাদে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি’র মানববন্ধন

বাস থেকে ফেলে যাত্রীকে হত্যার প্রতিবাদে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি’র মানববন্ধন

বাস থেকে ফেলে দিয়ে যাত্রী জসিম উদ্দিনকে হত্যার প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা জসিম হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও পরিবহনে নৈরাজ্য বন্ধের দাবী।
চট্টগ্রামে সিটি সার্ভিসের ১০নং বাসে এক টাকা অতিরিক্ত বাস ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় বাসযাত্রী জসিম উদ্দিনকে চালক ও সহকারী কর্তৃক কিল-ঘুষি লাথি মেরে বাস থেকে ফেলে হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও পরিবহনে নৈরাজ্য বন্ধের দাবী জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

আজ ২৯ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকালে সংগঠনের চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির আওতাধীন পাঁচলাইশ থানা কমিটির উদ্যোগে চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি মোড়স্থ পুলিশ বক্সের সামনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় বাস থেকে ফেলে নিরীহ যাত্রী জসিম উদ্দিনকে হত্যার প্রতিবাদে এবং গণপরিবহনে ভাড়া নৈরাজ্য বন্ধের দাবিতে এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় বক্তারা এই দাবি জানান।

বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রাম মহানগরীর ৩০ লক্ষ যাত্রীসাধারণ মাত্র ২/৩ শত পরিবহন দুর্বিত্তের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে। নগর জুড়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের মহোৎসব চলছে। পরিবহনে অতিরিক্ত আসন সংযোজনের কারণে গনপরিবহনগুলোতে বসা যায় না, দাঁড়ানো যায় না। সরকার দাঁড়িয়ে যাত্রীবহন নিষিদ্ধ করলেও চট্টগ্রাম সিটির প্রতিটি বাস-মিনিবাস, হিউম্যান হলারে দাঁড়িয়ে যাত্রীবহন করছে। এসবের প্রতিবাদ করলে যাত্রীদের হেনস্তার শিকার হতে হচ্ছে। তিনি নিরিহ বাস যাত্রী জসিম উদ্দিনের হত্যাকারীদের যথাযথ শাস্তি ও তার পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদানের জন্য সরকারের কাছে জোর দাবী জানান।

বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটি’র কার্যনিবাহী সদস্য ও পাঁচলাইশ থানা’র সভাপতি রোটারিয়ান মো: ইমতিয়াজ আহমেদ এসিএ,র সভাপতিত্বে ও নগর কমিটির সহ সভাপতি সুলাইমান মেহেদী হাসানের সঞ্চালনায় নগরীর জিইসি মোড়স্থ বাস যাত্রী জসিম উদ্দিনের হত্যার স্পটে অনুষ্ঠিত এই প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের নগর কমিটির সভাপতি সৈয়দ মো: মোখতার উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ওচমান জাহাঙ্গীর, অর্থ সম্পাদক কামাল হোসেন, নিরাপদ সড়ক চাই নগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাজিদ হোসেন সজীব, পটিয়া ছনহরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুর রশিদ দৌলতী, ছনহরা নাগরিক পরিষদের সভাপতি আব্দুর রশিদ বাবুল, আসক ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় পরিচালক এমদাদুল করিম সৈকত, নিহত ভিকটিম জসিম উদ্দিনের স্ত্রী সেলিনা আক্তার শিমু প্রমুখ।

সমাবেশে নিহত জসিম উদ্দিনের স্ত্রী সেলিনা আক্তার কান্না জড়িত কণ্ঠে তার স্বামী হত্যার বিচার দাবি করেন এবং তার ২ মেয়ে ও ১ শিশু সন্তানকে নিয়ে বেঁচে থাকার জন্য উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দাবি করেন।

About msmh msmh

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: